কুরআনের দাওয়াত ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন বলেই আল্লামা সাঈদীকে হত্যা করতে চাইছে সরকার

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, আল্লামা সাঈদীকে অন্যায় ভাবে কারাগারে আটক রেখে দেশের মানুষকে কুরআনের দাওয়াত থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। কুরআনের দাওয়াত ঘরে ঘরে পৌঁছে দিয়েছেন বলেই আল্লামা সাঈদীকে হত্যা করতে চাইছে সরকার।

১১ই মার্চের শহীদেরা ইসলামী আন্দোলনের প্রেরণার উৎস

সেদিন বাতিলেরা ভেবেছিল এই বর্বর হত্যাকান্ড চালিয়ে ছাত্রশিবিরকে নিশ্চিহ্ন করা যাবে। কিন্তু রক্ত ঝড়িয়ে আদর্শকে দমন করা যায়না বরং আন্দোলনের ভিত্তি আরও মজবুত হয়। যার উৎকৃষ্ট উদাহরণ ছাত্রশিবিরের আজকের অবস্থান। সেই শহীদদের ধারাবাহিকতায় এ পর্যন্ত অসংখ্য নেতাকর্মী জীবন বিলিয়ে দিয়েছে। এখনো চলছে জুলুম নির্যাতন

সময়ের অনিবার্য প্রয়োজনেই ছাত্রশিবিরের প্রতিষ্ঠা

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, কোন প্রেক্ষাপট ছাড়া যেমন কোন ঐতিহাসিক ঘটনা জন্ম নেয় না তেমনি কোন প্রয়োজন ছাড়া সংগঠনেরও জন্ম হয় না। ছাত্রশিবিরের প্রতিষ্ঠা ছিল তৎকালীন সময়ের এক অনিবার্য দাবি। আর সময়ের অনিবার্য প্রয়োজনেই ছাত্রশিবির জন্মলাভ করেছে।

দেশকে নেতৃত্ব দেয়ার উপযোগী হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা ও রক্ষার জন্য প্রয়োজন আদর্শিক নেতৃত্ব তৈরী ও প্রতিষ্ঠা করা। তবেই দেশকে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব। তাই দেশকে নেতৃত্ব দেয়ার উপযোগি হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে হবে।

ছাত্রশিবির জাতির প্রত্যাশা পূরণে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করে যাবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, আদর্শিক পন্থায় সকল সম্ভাবনাকে সঠিকভাবে কাজে লাগিয়ে সমৃদ্ধ দেশ গঠন ছাত্রশিবিরের লক্ষ্য। একইসাথে তা জাতির প্রত্যাশা। সকল প্রতিকূলতাকে মোকাবেলা করে ছাত্রশিবির জাতির প্রত্যাশা পূরণে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করে যাবে।