আসন্ন নির্বাচনে ছাত্রসমাজকে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করতে হবে-শিবির সভাপতি

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, জাতীয় নির্বাচন বাংলাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আগামী দিনে মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা, দেশের সার্বভৌমত্ব ও ইসলাম রক্ষা, ছাত্রসমাজের অধিকার আদায় এবং জুলুম থেকে মুক্তির প্রশ্নের সাথে আসন্ন নির্বাচন জড়িত। এক্ষেত্রে আসন্ন নির্বাচনে ছাত্রসমাজকে ঐতিহাসিক ভূমিকা পালন করতে হবে।

২৮শে অক্টোবরের শহীদদের রক্ত ইসলামী আন্দোলনের ভিত্তিকে আরও সুদৃঢ় করেছে-শিবির সভাপতি

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, বাংলাদেশে ইসলামী আন্দোলনের জন্য ২০০৬ সালের ২৮শে অক্টোবর একটি বিশেষ অধ্যায়। এ দিন আওয়ামী অপশক্তি বাংলার জমিন থেকে ইসলামী আন্দোলনকে ধ্বংস করে দিতে এক ভয়াবহ নারকীয়তার অবতারণা করে। কিন্তু তাদের স্বপ্ন পূরণ হয়নি। বরং বুমেরাং হয়েছে। ২৮শে অক্টোবরের শহীদদের রক্ত ইসলামী আন্দোলনের ভিত্তিকে আরও সুদৃঢ় করেছে।

সরকারের পূর্বপরিকল্পনার অংশ হিসেবে নাটক সাজিয়েছে পুলিশ

বিতর্কিত পুলিশ কর্মকর্তা মেহেদি হাসানের তত্ত্বাবধানে ছাত্রশিবির চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর শাখার বন্ধ কার্যালয়ে বোমা বিষ্ফোরণ নাটকের প্রতিবাদে রাজধানীসহ সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রশিবিরের বিভিন্ন শাখা।

নিরপরাধ ছাত্রদের জীবনকে ধ্বংস করে দেয়ার নির্মম খেলায় মেতে উঠেছে পুলিশ-ছাত্রশিবির

গ্রেপ্তারের পর ৬দিন পেরিয়ে গেলেও ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ শাখার সভাপতি শাফিউল আলমসহ ৫জনকে আদালতে হাজির না করার প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ছাত্রশিবির ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ ও উত্তর শাখা।

নিখোঁজ শাফিউল আলমসহ ৫ জনের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেছে শিবির

ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি শাফিউল আলমসহ নিখোঁজ ৫ জনের নিঃশর্ত মুক্তি দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ শাখা। সকালে রাজধানীর গেন্ডারিয়া রেল স্টেশন এলাকায় এই বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি কেন্দ্রীয় শিক্ষা সম্পাদক রাশিদুল ইসলামের নেতৃতে গেন্ডারিয়া রেল স্টেশন থেকে শুরু হয়ে রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে জুরাইন গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

কোরআনের সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শহিদদের রক্তের ঋণ শোধ করা হবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, কোরআনের আলোকে সার্বিক জীবন পরিচালনা ছাড়া প্রকৃত শান্তি ও কল্যাণ সম্ভব নয়। বিশ্ব মানবতার শান্তি নিহিত রয়েছে আল কোরআনের বিধানের মাঝেই। তবে কোরআনের পথে চলা সহজ নয়। আল্লাহর বিধান অনুযায়ী সমাজ বিনির্মাণে প্রচেষ্টা চালানোর অপরাধেই বিচারের নামে হত্যা করা হয়েছে মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীসহ ইসলামী আন্দোলনের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে। তবে দ্বীনের পথের সৈনিকরা তাতে ভীত নয়। কোরআনের সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে শহিদদের রক্তের ঋণ শোধ করা হবে।

কোরআনের আলো ঘরে ঘরে পৌছাতে ছাত্রসমাজকে ভূমিকা পালন করতে হবে

বাংলাদেশে ইসলামি ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, কোরআন হচ্ছে মানব জাতির জন্য পথ প্রদর্শক। কোরআনের আলোকে ব্যক্তি, পরিবার ও সমাজ গঠন করতে হবে। দুনিয়ার শান্তি ও আখেরাতের মুক্তির জন্য কোরআনের সমাজ প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই। তাই কোরআনের আলো ঘরে ঘরে পৌছাতে ছাত্রসমাজকে ভূমিকা পালন করতে হবে।

শিক্ষাক্ষেত্রে সকল বৈষম্য ও অনিয়ম দূর করতে হবে

তিনি আজ রাজধানীর এক মিলনায়তনে ছাত্রশিবিরের মাসিক সেক্রেটারিয়েট বৈঠকে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। এসময় সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন, দপ্তর সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, দাওয়া সম্পাদক শাহ মাহফুজুল হকসহ সেক্রেটারিয়েট সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ হেফাজতে একের পর এক মৃত্যুর ঘটনায় জাতি উদ্বিগ্ন -শিবির সেক্রেটারি জেনারেল

তিনি আজ দিনাজপুরের এক মিলনায়তনে ছাত্রশিবির দিনাজপুর অঞ্চলের সদস্য শিক্ষা শিবিরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। দিনাজপুর শহর সভাপতি সোহেল রানার পরিচালনায় শিক্ষা শিবিরে বক্তব্য রাখেন, ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় মানবাধিকার সম্পাদক নাদিমুল ইসলাম,বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দিনাজপুর উত্তর জেলা আমীর অধ্যক্ষ আনিসুর রহমান, ঠাকুরগাঁ জেলা আমীর মাওলানা আব্দুল হাকিম, ঠাকুরগাঁও শহর সভাপতি মোঃ রাজিউর রহমান রাজু, ঠাকুরগাঁও জেলা সভাপতি সাইফুল ইসলাম, দিনাজপুর জেলা উত্তর সভাপতি রেজাউল ইসলাম, দিনাজপুর জেলা দক্ষিণ সভাপতি সাদিকুর রহমান সবুজ, পঞ্চগড় জেলা সভাপতি বেলাল হোসেন, দিনাজপুর শহর সেক্রেটারি তোফায়েল আহমেদসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।

সিরিয়ায় নারী শিশুসহ গণহত্যা বন্ধে মুসলিম বিশ্বকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে

তিনি বলেন, সিরিয়ায় বর্বর আগ্রাসন বিশ্ব সভ্যতার জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি। সিরিয়ায় স্বৈরশাসক ও তার মিত্রদের ধারাবাহিক নৃসংশতায় নিরব থাকা তাদের বর্বরতার প্রতি সরাসরি সমর্থন দেয়ার শামিল। বিশ্বের শান্তি প্রিয় মানবিক বোধ সম্পন্ন মানুষ সিরিয়ার শিশুদের ছিন্ন বিচ্ছিন্ন দেহগুলো আর দেখতে পারছে না। অবিলম্বে এ বর্বরতা বন্ধে বিশ্ববাসীকে বিশেষ করে মুসলিম নেতৃবৃন্দকে এগিয়ে আসতে হবে। সিরিয়ায় স্থায়ী শান্তি স্থাপনে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। বিশ্বের সকল প্রান্তে নির্যাতিত নিপীড়িত মুসলমানদের রক্ষায় কার্যকর সিদ্ধান্ত ও কর্মপন্থা নির্ধারণ করতে হবে। অন্যথায় ইতিহাস কাউকে ক্ষমা করবে না।