সরকারের গ্রেপ্তার নির্যাতনে অসংখ্য পরিবারে ঈদ আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে-শিবির সভাপতি

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, ঈদ সবার জন্য খুশি আনন্দের বার্তা নিয়ে আসলেও অপশাসনের কারণে সবার জন্য তা আনন্দময় হয়নি। সরকারের গ্রেপ্তার নির্যাতনে অসংখ্য পরিবারে ঈদের আনন্দ ম্লান হয়ে গেছে।

দূর্নীতি ও মাদককে সমাজ থেকে বিদায় জানাতে মেধাবীদের বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করতে হবে

তিনি আজ সকাল ১০টায় ছাত্রশিবির কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার উদ্যোগে নাঙ্গলকোটের স্থানীয় এক মিলনায়তনে এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় জিপিএ ৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা জেলা দক্ষিণ সভাপতি জোবায়ের ফয়সাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা মহানগর সেক্রেটারি শাহাদাত ইবনে সালেহ, বান্দরবান জেলা ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি হারুনুর রশিদ, পেরিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সহিদ উল্লাহ মিয়াজী, নাঙ্গলকোট উপজেলা উত্তর জামায়াতের আমীর এস,এম মহিউদ্দীন, নাঙ্গলকোট দক্ষিণ জামায়াতের সেক্রেটারি জামাল উদ্দিন, উত্তর জামায়াতের সেক্রেটারি মাওলানা ইউসুফ আলী প্রমূহ।

রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও সুষ্ঠ ভাবে রোজা পালনের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে-ছাত্রশিবির

র‌্যালি পরবর্তী সমাবেশে শিবির নেতারা বলেন, শুধু মুসলমান নয় বরং মানবজাতির জন্য সর্বশ্রেষ্ঠ গ্রন্থ আল কোরআন। মহাগ্রন্থ আল কোরআন রমজান মাসে নাজিল হয়েছে। কুরআন থেকে হেদায়াত লাভ ও সমাজে কুরআনের আইন প্রতিষ্ঠার জন্য যে মনমানসিকতা ও চরিত্রের প্রয়োজন, সেই মন ও চরিত্র সৃষ্টির জন্য আল্লাহ তায়ালা মাহে রমজানের রোজা পালনকে আমাদের জন্য ফরজ করেছেন। আল কোরআনের কল্যাণময় জীবন ধারা শুধু একটি মাসেই অনুস্বরণের বিষয় নয়। বরং জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে কোরআনের বিধানকে প্রাধান্য দিতে হবে। তাই রমজান মাসকে প্রশিক্ষণের মাস হিসেবে গ্রহণ করে সার্বিক জীবনে কুরআনের অনুস্বরণকারী হিসেবে নিজেদের গড়ে তুলতে হবে। একই সাথে কুরআনের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারীদের প্রতিহত করার শপথ গ্রহণ করতে হবে।

জাতির কল্যাণ সাধনই হবে মেধাবীদের লক্ষ্য : শিবির সভাপতি

তিনি আজ ছাত্রশিবির চট্টগ্রাম মহানগরী দক্ষিণের উদ্যোগে আয়োজিত এসএসসি, দাখিল ও সমমান পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।মহানগরী সভাপতি রফিকুল হাসান লোদীর সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারি ইমরানুল হকের পরিচালনায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় বিতর্ক সম্পাদক কামরুল হাসান,মহানগরী অফিস মু.হাসনাত, আইন সম্পাদক মু.ইউসুফ, কলেজ সম্পাদক সাব্বির আহমদ, স্কুল সম্পাদক হামিদ আজাদসহ মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

বাতিলের অপতৎপরতা আদর্শ দিয়ে মোকাবেলা করতে হবে

তিনি আজ ছাত্রশিবির ঢাকা জেলা দক্ষিণ ও মুন্সিগঞ্জ জেলার সদস্য শিক্ষা শিবিরে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। ঢাকা জেলা দক্ষিণ সভাপতি আমিনুল ইসলামের পরিচালনায় ও মুন্সিগঞ্জ জেলা সভাপতি আব্দুল গাফফারের ব্যবস্থাপনায় শিক্ষা শিবিরে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ডা: ফখরুদ্দিন মানিক, কেন্দ্রীয় শিক্ষা সম্পাদক মো. রাশেদুল ইসলাম ও ঢাকা মহানগরী পূর্বের সভাপতি সোহেল রানা মিঠুসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

মেধার বিকাশের পাশাপাশি নৈতিকতার বিকাশ ঘটাতে হবে -শিবির সেক্রেটারি জেনারেল

শিবির সেক্রেটারি জেনারেল বলেন, সততা ও নৈতিকতা সম্পন্ন লোক তৈরির মাধ্যমে ইনসাফপূর্ণ সমাজ গঠন করা সম্ভব। এই লক্ষ্য পূরণে মেধাবীদেরকেই এগিয়ে আসতে হবে। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় মানুষ শিক্ষিত হয় কিন্তু নৈতিক শিক্ষা লাভ করেনা। সৎ হওয়ার পরও অযোগ্যতার জন্য যেমন একজন নাগরীক জাতির জন্য তেমন কিছু করতে পারেনা, ঠিক তেমনি যোগ্যতা সম্পন্ন হয়েও সততা না থাকার কারণে তার কাছ থেকেও জাতি প্রত্যাশিত কিছু পায়না। বরং জাতির জন্য অসৎ যোগ্য নাগরিক অভিশাপে পরিণত হয়। যার প্রমাণ প্রতিদিনই দেশের মানুষ পাচ্ছে। বড় বড় দূর্নীতি ও অপকর্ম করে যারা জাতিকে বার বার লজ্জিত করছে তারা সবাই মেধাবী। অপার সম্ভাবনা এবং পর্যাপ্ত প্রাকৃতিক ও জনসম্পদ থাকার পরও এসব নৈতিকতাহীন মেধাবীদের কারণে জাতি তার সুফল থেকে বঞ্চিত। এ অবস্থায় জাতির হাল ধরতে হবে মেধাবীদেরকেই। আজকের মেধাবীদের মধ্যে দেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাবার দৃঢ় প্রত্যয় থাকতে হবে।

স্বনির্ভর দেশ গড়তে মেধাবীদের এগিয়ে আসতে হবে-শিবির সভাপতি

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, বর্তমান বাংলাদেশে নৈতিকতা ও যোগ্যতা সম্পন্ন নেতৃত্বের বড় অভাব। আর এই অভাবই দেশকে কাঙ্খিত মানে পৌছাতে দিচ্ছে না। তাই দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে নৈতিকতা সম্পন্ন ক্যারিয়ার গঠনের মাধ্যমে স্বনির্ভর দেশ গড়তে মেধাবীদের এগিয়ে আসতে হবে।

স্বাধীনতার লক্ষ্য বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, মর্যাদা ও স্বাধীন ভাবে বেঁচে থাকার স্বপ্ন নিয়ে জাতীর বীর সন্তানরা বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে এদেশ স্বাধীন করেছেন। সেই মহান আত্বত্যাগকারীদের স্বপ্ন পূরণের দায়িত্ব তরুণ প্রজন্মের। তাই স্বাধীনতার লক্ষ্য বাস্তবায়নে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে।

কষ্টার্জিত স্বাধীনতা রক্ষায় ইস্পাত কঠিন ঐক্যের বিকল্প নেই

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেছেন, স্বাধীনতার চেতনাই হচ্ছে দলমত নির্বিশেষে বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়া। তাই কষ্টার্জিত স্বাধীনতা রক্ষায় ইস্পাত কঠিন ঐক্যের কোন বিকল্প নেই।

ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে যাবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, একের পর এক নজিরবিহীন অপকর্মের ঘৃন্য উদাহরণ সৃষ্টি করে চলেছে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা। তাদের ঘৃন্য কর্মকান্ডের মাত্রা সীমা ছাড়িয়ে গেছে। যার সর্বশেষ উদাহরণ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগ সেক্রেটারির নেতৃত্বে আন্দোলনকারী ছাত্র-ছাত্রীদের উপর বর্বর হামলা ও যৌন নির্যাতন। সন্ত্রাসীদের কাছে শিক্ষার্থীরা জিম্মি হয়ে পড়েছে। ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে যাবে।