বিশ্ব নেতৃবৃন্দের নিরবতায় সাম্রাজ্যবাদীরা মুসলমানদের রক্ত ঝরাচ্ছে

বাংলাদেশে ইসলামি ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, নির্যাতিত নিপীড়িত মুসলমানদের রক্তে বার বার জমিন সিক্ত হচ্ছে। আর বরাবরই বিশ্ব নেতৃত্ব অস্বাভাবিক দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছে। বিশ্ব নেতৃবৃন্দের নিরবতায় সাম্রাজ্যবাদীরা মুসলমানদের রক্ত ঝরাচ্ছে।

সৎ ও দক্ষ নাগরিক তৈরীর নিরলস প্রচেষ্টা চালাতে হবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, অসৎ নেতৃত্ব জাতিকে ধ্বংসের দিকে ধাবিত করছে। বিভিন্ন মত ও পথের ফাঁদে পড়ে মুসলমানদের বিশাল অংশ আজ বিভ্রান্তি ও অনৈতিকতায় নিমজ্জিত হয়ে আছে। এই অবস্থার উত্তরণে প্রতিটি নেতা কর্মীকে সৎ ও দক্ষ নাগরিক তৈরীর নিরলস প্রচেষ্টা চালাতে হবে।

শহীদদের রক্ত এদেশে ইসলামী আন্দোলনের ভিতকে আরো মজবুত করেছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, ইসলামী আন্দোলনের সাথে বাতিলের সংঘাত ঐতিহাসিক বাস্তবতা। ইতিহাস স্বাক্ষী যুগে যুগে জালিম শাসকেরা জুলুম নির্যাতন আর হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে ইসলামী আন্দোলনকে দমিয়ে দিতে চেয়েছে। কিন্তু সময়ের ব্যবধানে শহীদের রক্ত কথা বলেছে। চূড়ান্ত বিজয় হয়েছে সত্যেরই। শহীদ আব্দুল কাদের মোল্লাসহ নেতৃবৃন্দের শাহাদাত বৃথা যায়নি। তার প্রতিফোঁটা রক্ত এদেশে ইসলামী আন্দোলনের ভিতকে আরও মজবুত করেছে।

প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধ্যমে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ধ্বংসের মহোৎসব চলছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, যে শিক্ষা জাতির এগিয়ে যাওয়ার মূলমন্ত্র সেই শিক্ষাব্যবস্থা ধ্বংস করে দিতে সর্বগ্রাসী ষড়যন্ত্র ভয়াবহ রুপ ধারণ করেছে। যার প্রমাণ দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার সর্বস্তরে অব্যাহত প্রশ্নপত্র ফাঁস। মূলত প্রশ্নপত্র ফাঁসের মাধ্যমে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে ধ্বংসের মহোৎসব চলছে।

সৎ দক্ষ ও দেশপ্রেমিক নেতৃত্ব তৈরীর কাজ করছে ছাত্রশিবির

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেছেন, আমাদের দেশকে সোনার বাংলায় পরিণত করতে সততা ও দক্ষতার সমন্বয়ে গড়া নেতৃত্বের বড় প্রয়োজন। আজকের তরুণ প্রজন্মকে সেভাবে গড়ে তুলতে পারলে তারাই ভবিষ্যতে দেশ থেকে দুর্নীতি, সন্ত্রাস দূর করতে সক্ষম হবে। তাই ছাত্রশিবির সৎ,দক্ষ ও দেশপ্রেমিক নেতৃত্ব তৈরীর কাজ করছে।

কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদেরকে পরিকল্পিত ভাবে বিপদগামী করা হচ্ছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজ গুলোতে অনিয়ম দূর্নীতি এবং সন্ত্রাসের মাধ্যমে মেধা চর্চার সুযোগ থেকে শিক্ষার্থীদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। অন্যদিকে মাদক ও নোংড়া সংস্কৃতির প্রসার ঘটিয়ে তাদের নৈতিক চরিত্রকে দূর্রল করে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদেরকে পরিকল্পিত ভাবে বিপদগামী করা হচ্ছে।

ছাত্রলীগের সন্ত্রাসের কাছে সারাদেশে সাধারণ ছাত্ররা জিম্মি হয়ে পড়েছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, একের পর এক নজিরবিহীন অপকর্মের ঘৃন্য উদাহরণ সৃষ্টি করে চলেছে ছাত্রলীগ সন্ত্রাসীরা। এখন পর্যন্ত এসব সন্ত্রাসের দৃষ্টান্তমূলক কোন বিচার হয়নি। উল্টো অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদেরকে প্রশ্রয় দিয়ে তাদেরকে পুরস্কৃত করা হচ্ছে। ফলে ক্যাম্পাস গুলোতে তীব্র অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে। এখন ছাত্রলীগের সন্ত্রাসের কাছে সারাদেশে সাধারণ ছাত্ররা জিম্মি হয়ে পড়েছে।

প্রশ্ন ফাঁসের মাধ্যমে শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংসের পায়তারা করছে সরকার

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, দেশের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে সর্ব মহলে প্রশ্ন উঠেছে। মেডিকেল, বিশ্ববিদ্যালয়সহ গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হচ্ছে। মেধাবীরা আজ সকল ক্ষেত্রে বঞ্চিত হচ্ছে। যা শিক্ষাব্যবস্থার জন্য ভয়াবহ বিপর্যয়েরই নামান্তর। যার প্রভাব জাতীয় রাজনীতিতে পরিলক্ষিত হচ্ছে। তাই জাতীয় রাজনীতির গুনগত পরিবর্তন সাধনের জন্য ছাত্র রাজনীতিতে মেধা চর্চার বিকল্প নাই।

ক্ষমতার মোহে অন্ধ সরকার একের পর এক সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, জনগণের ভোটাধিকার হরণকারী জনসমর্থনহীন সরকার অবৈধ ক্ষমতা স্থায়ী করতে হীন কোন ষড়যন্ত্র নেই যা তারা করছে না। আর জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে সরকার নাটকের মঞ্চস্থ করে চলেছে। ক্ষমতার মোহে সরকার একের পর এক সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করছে।

গ্রেপ্তার-নির্যাতন করে ইসলামী আন্দোলনের অগ্রযাত্রা থামানো যাবেনা

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, দেশ ও ইসলাম রক্ষায় ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা আপোষহীন। দ্বীনের পথে যে কোন ত্যাগ স্বীকার করতে ছাত্রশিবিরের কর্মীরা সর্বদা প্রস্তুত। সুতরাং গ্রেপ্তার-নির্যাতন করে ইসলামী আন্দোলনের অগ্রযাত্রা থামানো যাবেনা।