ক্যাম্পাস গুলো সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, সরকার দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করার জন্য ছাত্রলীগকে দায়িত্ব দিয়েছে। আর ছাত্রলীগের অব্যাহত সন্ত্রাসে ক্যাম্পাস গুলো সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে।

মীর জাফরের প্রেতাত্নারাই স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রকে বিপন্ন করছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, বিশ্ব সভ্যতার ইতিহাসে জাতির সাথে বিশ্বাস ঘাতকতার কলঙ্কিত অধ্যায় পলাশীর ঘটনা। কিন্তু এ ঘটনার শত বছর পেরিয়ে গেলেও তাদের প্রেতাত্মারা বিলিন হয়ে যায়নি। আজও মীর জাফরের প্রেতাত্মারাই স্বাধীনতা ও গণতন্ত্রকে বিপন্ন করছে।

মূর্তি ইস্যুতে সরকার মুসলমানদের ধোকা দিয়েছে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, অবৈধ সরকারের ইসলাম বিরোধী কুৎসিত রুপ আরেক বার জাতির সামনে প্রকাশ হয়েছে। সুপ্রিমকোর্টের সামনে গ্রীক মূর্তি স্থাপন ইস্যুতে সরকার দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানদের ধোকা দিয়েছে। তিনি আজ রাজধানীর এক মিলনায়তনে ছাত্রশিবিরের মাসিক সেক্রেটারিয়েট বৈঠকে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সেক্রেটারি জেনারেল মোবারক হোসাইনের পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ সেলিম উদ্দীন। এসময় সেক্রেটারিয়েট সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নির্বিঘ্নে রোজা পালনের সার্বিক ব্যবস্থা সরকারকেই গ্রহণ করতে হবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, এদেশে মুসলিম প্রধান হলেও মাহে রমজানে রোজা পালনের সময় জনগণকে নানা ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। যা কাম্য নয়। অবিলম্বে নির্বিঘ্নে রোজা পালনের সার্বিক ব্যবস্থা সরকারকেই গ্রহন করতে হবে।

অবিলম্বে কওমি মাদ্রাসা সনদের স্বীকৃতি বাস্তবায়ন ও সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে মূর্তি অপসারণ করতে হবে

বাংলাদেশে বহুকাল ধরে হাজার হাজার কওমী মাদ্রাসা দ্বিনি শিক্ষার প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। কিন্তু দীর্ঘ দিন যাবত তাদেরকে সরকারী স্বীকৃতি থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। ন্যায্য স্বীকৃতির জন্য কওমী মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও আলেমগণ সিমাহীন পরিশ্রম ও ত্যাগ স্বীকার করেছেন। চারদলীয় জোট সরকারের আমলে জামায়াতে ইসলামীর অন্যতম শীর্ষ নেতা আল্লামা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা ব্যবস্থাকে সরকারী স্বীকৃতি প্রদানের জন্য বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেন

মঙ্গল শোভাযাত্রার নামে অপসংস্কৃতির আগ্রাসন চালাচ্ছে সরকার

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেন, বিজাতীয় সংস্কৃতি মঙ্গল শোভাযাত্রাকে রাষ্ট্রীয়করণের মাধ্যমে নিজস্ব সত্তা ও সমৃদ্ধ সংস্কৃতিকে বিসর্জন দেয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। জনগণের ইচ্ছার বাইরে গিয়ে বিভিন্নভাবে অপসংস্কৃতির আগ্রাসন চালাচ্ছে সরকার।

ছাত্রশিবির দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের অতন্দ্র প্রহরী

ছাত্রশিবির সমৃদ্ধ দেশ গড়তে যেমন নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তেমনি দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্রের ব্যপারেও সচেতন। দেশের স্বার্থের প্রশ্নে আমাদের অবস্থান আপোষহীন। ছাত্রশিবির দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

বাধা মোকাবেলা করেই লক্ষ্যপানে এগিয়ে যেতে হবে

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারী জেনারেল মোবারক হোসাইন বলেন, ইসলামী মূল্যবোধের ভিত্তিতে আগামীর সমৃদ্ধ বাংলা গড়ার প্রত্যয় নিয়ে ছাত্রশিবির কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু এ পথ কণ্টকমুক্ত নয়। বাধা আসবেই। সকল বাধা মোকাবেলা করেই লক্ষ্য পানে এগিয়ে যেতে হবে।

অপপ্রচার করে লাভ হবেনা

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, প্রতিহিংসামূলক অপরাজনীতির অন্যতম হাতিয়ার অপপ্রচার। যা আদর্শহীনরা প্রতিনিয়ত ছাত্রশিবিরের বিরুদ্ধে ব্যবহার করছে। কিন্তু অতিতে সীমাহীন অপপ্রচার করেও ছাত্রশিবিরের অগ্রযাত্রাকে দমাতে পারেনি। সুতরাং নতুন করে অপপ্রচার করে লাভ হবেনা।

নীতিহীন নেতৃত্ব সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থ হয়েছে

ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত বলেছেন, বর্তমান নেতৃত্ব দেশের সমস্যা সমাধানও জাতির প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে। তাদের এই অদক্ষতা ও নীতিহীনতার কারণেই দেশের মানুষ আজ দ্বিধা বিভক্ত। সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে আজ অশান্তি ছড়িয়ে পড়েছে। রাষ্ট্রের প্রতিটি শ্রেণী পেশার মানুষ অশান্তিতে দিন যাপন করছে। এর মূল কারণ নীতিহীন অদক্ষ নেতৃত্ব। সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সৎ ও দক্ষ নেতৃত্বের বিকল্প নাই।