সংবিধান

পরিশিষ্ট

সাথীর শপথ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম
আমি ……………… যাকে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাথী শ্রেণীর অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে, আল্লাহ রাব্বুল আ’লামীনকে সাক্ষী করে ওয়াদা করছি যে-

(১) আমি বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের আদর্শ, লক্ষ, কর্মসূচি ও কর্মপদ্ধতির সাথে সম্পূর্ণরূপে একমত। এ উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ উসলামী ছাত্রশিবির যে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তাতে আমি সম্ভাব্য সকল প্রকার সহযোগিতা করব।

(২) আমি ইসলামের মৌলিক বিধি-বিধানসমূহ যথাযথভাবে পালন করব এবং
(৩) আমার উপর অর্পিত আমানত যথাযথভাবে রক্ষা করব।

আল্লাহ আমাকে এ ওয়াদা পালন করার তৌফিক দিন। আমিন।

স্বাক্ষর-


সদস্যদের শপথ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

‘আশহাদু আল-লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়া-আশহাদু আন্না মুহাম্মাদান আবদুহু ওয়া রাসূলুহু।’ (আমি সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, আল্লাহ ছাড়া কোন ইলাহ নেই এবং মুহাম্মদ (সঃ) তাঁর বান্দা ও রাসূল)।

আমি ………………. বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সদস্য হয়ে আল্লাহ রাব্বুল আ’লামীনকে সাক্ষী করে ওয়াদা করছি যে,

(১) আল্লাহ ও তাঁর রাসূল (সঃ)- এর নির্দেশিত আদেশ-নিষেধ অনুযায়ী জীবন গঠন করে আল্লাহ তাআলার সন্তুষ্টি অর্জন করাই হবে আমার জীবনের মূল লক্ষ্য এবং এ লক্ষ্যে পৌঁছার জন্যে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবার সংকল্প নিয়ে নিছক আল্লাহর উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সদস্য হচ্ছি।

(২) আমি শিবিরের কর্মনীতি ও কর্মসূচি পুরোপুরি সমর্থন করি।

(৩) আমি এ সংবিধান অনুযায়ী শিবিরের নিয়ম-কানুন পালন করব। আমি আরও ওয়াদা করছি যে, আমার সাধ্যানুযায়ী-

(৪) আমি সমস্ত ব্যাপারে নিজের দৃষ্টিভঙ্গি, চিন্তাধারা এবং কার্যক্রমকে কুরআন ও সুন্নাহর ছাঁচে ঢেলে গঠন করার চেষ্টা করব এবং নিজের জীবনের উদ্দেশ্য, পছন্দ-অপছন্দের মাপকাঠি ও আনুগত্যের কেন্দ্র পরিবর্তন করে শুধু আল্লাহর সন্তোষ লাভের অনুকূলে গড়ে তোলার চেষ্টা করব।

(৫) আমি জ্ঞান অর্জন করতে এবং শারীরিক ও মানসিক যোগ্যতার বিকাশ সাধনের চেষ্টা চালিয়ে যাব।

(৬) আমি ছাত্রদের নিকট শিবিরের আহবান পৌঁছাতে এবং যারা তা গ্রহণ করে তাদেরকে শিবিরের পতাকা তলে সংঘবদ্ধ করতে চেষ্টা করব।

(৭) আমি আমার উপর অর্পিত আমানত যথাযথভাবে রক্ষা করব। ‘ইন্না সালাতী ওয়া নুসুকী ওয়া মাহইয়াইয়া ওয়া মামাতি লিল্লাহ রাব্বিল আ’লামিন।

(আমার নামাজ, আমার কুরবানী, আমার জীবন, আমার মৃত্যু, সবকিছুই আল্লাহর জন্যে যিনি সারা বিশ্বের প্রতিপালক)।
আল্লাহ আমাকে এ ওয়াদা পালন করার তৌফিক দিন। আমীন।

সাক্ষর-


সভাপতির শপথ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

আমি…………….বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির ………… এর সভাপতি নিযুক্ত হয়েছি। আল্লাহ রাব্বুল আ’লামীনকে সাক্ষী রেখে ওয়াদা করছি যে,

(১) আমি শিবিরের মূল উদ্দেশ্য হাসিল ও কর্মসূচির পরিপূর্ণতা বিধানকেই আমার সর্বপ্রধান কর্তব্য বলে মনে করব।

(২) নিজে শিবিরের সংবিধান মেনে চলব এবং এর ভিত্তিতে শিবিরের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে, সুষ্ঠু নিয়ম-পদ্ধতি প্রতিষ্ঠিত করতে ও চালাতে এবং এর সংরক্ষণ করতে যথাসাধ্য চেষ্টা করব।

আল্লাহ আমাকে এ ওয়াদা পালন করার তৌফিত দিন। আমীন।

সাক্ষর-


কার্যকরী পরিষদের সদস্যদের শপথ

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

আমি………………….যাকে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কার্যকরী পরিষদের সদস্য করা হয়েছে, আল্লাহ রাব্বুল আ’লামীনকে সাক্ষী করে ওয়াদা করছি যে-

(১) আমি শিবিরের শৃংখলা বিধান ও এর কার্যাবলীর পূর্ণ তত্ত্বাবধান এবং সেখানে যদি কোন ত্রুটি পরিলক্ষিত হয় তাহলে তা দূর করার যথাসাধ্য চেষ্টা করব।

(২) শিবিরের সংবিধান এবং কার্যকরী পরিষদের দিভি-বিধানের পূর্ণ অনুগত থাকব।

(৩) নিজের অভিমত দ্বিধাহীন চিত্তে প্রকাশ করব।

(৪) কোন শরযী ওজর-আপত্তি ব্যতিরেকে পরিষদের অধিবেশনে উপস্থিত হতে অথবা অভিমত প্রেরণ করতে কোন ত্রুটি করবনা। আল্লাহ রাব্বুল আ’লামীন আমাকে এ ওয়াদা পালনের ক্ষমতা দিন। আমীন।

সাক্ষর-

— সমাপ্ত —