শহীদ নোমানী : স্বপ্নচারী অভিযাত্রিক

নজরকাড়া নয়ন যুগল অনেকেরই থাকে, কিন্তু তার থেকে যে দৃষ্টি ঝরে- তাতে মমতা এবং স্বপ্ন থাকে ক’জনার। মার্চ এলেই সেই মমতাময় নয়ন আমাকে নাড়া দেয়। মমতার আচ্ছাদনে বাঁধতে শেখায় আমাকে। হাঁটতে শেখায় পথ তৈরি করে করে। আমি জানি, এ অনুভূতি আমি একাই উপলব্ধি করি না। শহীদ নোমানী ভাইকে কাছ থেকে যারা দেখেছেন, যারাই তাঁর সাথে মিশেছেনÑ তারা আজ অনুপ্রাণিত সেই নয়নের মমতা মেখে।

১১ই মার্চের শহীদেরা ইসলামী আন্দোলনের প্রেরণার উৎস

সেদিন বাতিলেরা ভেবেছিল এই বর্বর হত্যাকান্ড চালিয়ে ছাত্রশিবিরকে নিশ্চিহ্ন করা যাবে। কিন্তু রক্ত ঝড়িয়ে আদর্শকে দমন করা যায়না বরং আন্দোলনের ভিত্তি আরও মজবুত হয়। যার উৎকৃষ্ট উদাহরণ ছাত্রশিবিরের আজকের অবস্থান। সেই শহীদদের ধারাবাহিকতায় এ পর্যন্ত অসংখ্য নেতাকর্মী জীবন বিলিয়ে দিয়েছে। এখনো চলছে জুলুম নির্যাতন

শহীদী মিছিলে শামিল হলেন প্রিয় ভাই ওমর ফারুক।

শহীদী মিছিলে শামিল হলেন প্রিয় ভাই ওমর ফারুক।

কুরআনের আন্দোলনে নিবেদিত প্রাণ শহীদ খলিলুর রহমান

২০০৯ সালে আমি শ্যামপুর থানা সভাপতি থাকাকালীন শহীদ খলিলুর রহমান ভাইকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল মুরাদপুর মাদ্রাসা ওয়ার্ডের। অল্প দিনের মধ্যেই তিনি হয়ে উঠলেন মাদ্রাসার সকল ছাত্রের প্রিয়ভাজন ব্যক্তি। কিছুদিনের মধ্যে অন্য সকল ওয়ার্ডের চাইতে সর্বোচ্চ সংখ্যক সমর্থক, কর্মী ও সাথী বৃদ্ধি করে মাদ্রাসায় সংগঠনের কাজের মজবুত অবস্থান তৈরি করলেন। তিনি যখন মাদ্রাসায় যেতেন তখন ছোট বড় সবাই তার সাথে দেখা করার জন্য ভীড় জমাতেন। মনে হতো তিনি যেন সকলের আপনের চাইতেও আপন।

শহীদ রাশিদুল হক রান্টুর বাবার কথা

বাবার সাথে ছোটবেলা থেকেই মসজিদে যাওয়ার অভ্যাস ছিলো রান্টুর। ক্লাস ফাইভ থেকেই নিয়মিত রোজা রাখতো। আমি কখনো অসুস্থ্য থাকলে খেতে না পারলে সেও খেত না। বাবার হাত নিজে ধুয়ে দিত, তারপর একসাথে খেত